শিল্পসংস্কৃতি - পৃষ্ঠা নং-৪

তারা ষোড়শ শতক থেকে সপ্তদশ শতক পর্যন্ত এ অঞ্চলে দস্যু বৃত্তিতে লিপ্ত ছিল। সময়কালটা সম্রাট আকবর ও শাহজাহানের শাসনকাল। সম্রাট আকবরের শাসনকালে ভূষণা কেন্দ্রিক ফতেয়াবাদ রাজ্য শাসন করতেন মোগল সেনাপতি মোরাদ খাঁ। মোরাদ খাঁ অংশে আলোচনা করা হয়েছে। কোনো কোনো গবেষক আলাওলকে এ অঞ্চলের মানুষ কলে দাবি করেন। তবে তৎকালীন ফতেয়াবাদ বর্তমান রাজবাড়ি, ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর অঞ্চল বিশেষ। ফলে ফতেয়াবাদ হিসেবে মধ্যযুগের কবি আলাওল আমাদের সকলের।

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

রাজবাড়ি জেলার মাটি ও মানুষের সাথে নিবিড় সম্পর্ক ও আত্মীয়তার সূত্রে তাঁকে স্মরণে আনার এ ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। রবীন্দ্রনাথ ১৮৯০ থেকে ১৯০১ পর্যন্ত শিলাইদহে থেকে এস্টেট পরিচালনার দায়িত্ব পালন করেন। এই ঠাকুর এস্টেটের অন্তর্ভুক্ত ছিল বর্তমান রাজবাড়ি জেলার অংশত।

‘গড়াই নদী কুষ্টিয়া ও কুমারখালির পদধৌত করে প্রবাহিত। এর তীরে ঠাকুর এস্টেটের তিনটি বড় বড় মহাল এবং গঞ্জ----কয়া, কুমারখালি ও জানিপুর। কিছুদূরে গড়াইয়ের একটি শাখা নদীর (ডাকুয়া খাল) তীরে ঠাকুর জমিদারীর পান্টিমহাল যশোর জেলার সীমানা------রবীন্দ্রনাথ ও শিলাইদহ যুগলবন্দি-প্রেক্ষণ।’ (আবুল আহসান চৌধুরী, পৃষ্ঠা-২)

ঠাকুর এস্টেটের বিরাহিম পরগনার অন্তর্গত ছিল বর্তমান রাজবাড়ি জেলার পাংশার পাট্রা ইউনিয়নের ‘কয়া’ যা বর্তমানে জাগির কয়া। সে সময় পাংশার পশ্চিম অংশত কুমারখালি প্রশাসনের অন্তর্গত ছিল। বর্তমান জেলার পাংশা সীমানা শিলাইদহ সংলগ্ন। এছাড়া কবি দু’বার ট্রেনে রাজবাড়ি ও গোয়ালন্দ হয়ে ঢাকা যাতায়াত করেছেন। রাজবাড়ি আরএসকে ইনস্টিটিউশনের প্রধান শিক্ষক ত্রৈলোক্যনাথ ভট্রাচার্য দু’বার তাঁর সান্নিধ্য পেয়েছেন। একবার বিজন স্কোয়ারে কংগ্রেস অধিবেশনে অন্যবার জোড়াসাঁকোর ভবনে। আমরা বিএ ক্লাসের কয়েকজন ছাত্র গিয়েছিলাম তাঁহার কাছে----তাঁহাকে অনুরোধ জানাইয়াছিলাম শেলীর Loves' Philosophy র The fountain mingles with the sea বঙ্গানুবাদ করিয়া দিন গানের ছন্দে ছন্দে। একটু দেখিয়া বলিলেন বস-----

নিঝর মিশিছে তটিনীর সালে

তটিনী ছুটেছে সাগর পানে,

পবনের মনে মিশিছে পবন,

চির সুখময় আমোদ ভরে।

ঐ দেখ গিরি চুমীছে আকাশ

ঢেউ পড়ে ঢেউ পড়িছে চলি

Additional information