চিত্র শিল্প - পৃষ্ঠা নং-১১

১৯৮৫ - এশীয় চিত্রশিল্প বাইয়েনিয়্যাল, ঢাকা

অর্পিত কার্য সম্পাদন *১

রশীদ চৌধুরী দেশে বিদেশে বিভিন্ন সরকারের হয়ে চিত্রকর্ম সম্পাদন করতেন। ১৯৬৩ সালে ফরাসী সরকারের মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে ট্যাপেস্ট্রি ও ডিজাইনের কাজ সম্পাদন করেন। ১৯৬৪ ফ্রান্সের ইসুসুয়াতে অবস্থিত সরকারি কলেজে মুরাল এর কাজ করেন। ১৯৬৫-১৯৬৭ সালে যথাক্রমে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন ও বাংলাদেশ পাট বিপণন সংস্থার ঢাকায় প্রধান কার্যালয়ে ট্যাপিস্ট্রির কাজ সম্পাদন করেন। ১৯৬৯ সালে ট্যাপিস্ট্রি ছাড়াও ফ্রেসকো চিত্রণের কাজে তাঁকে যেতে হয় ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং ঐ একই বছর বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের দেয়াল রশীদ চৌধুরীর ট্যাপিস্ট্রি লাভ করে। এরপর ১৯৭৩ থেকে ১৯৮৫ এই তের বছর দেশ বিদেশের বিভিন্ন সংস্থা থেকে অনুরোধ আসে ট্যাপিস্ট্রির জন্য। আসে গণভবন থেকে (১৯৭৩), ম্যানিলাস্থ এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক থেকে (১৯৭৫), জেদ্দার ইসলামী ব্যাংক (১৯৭৮), বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় (১৯৭৬), ব্যাংক অব ক্রেডিট এন্ড কমার্স ইন্টারন্যাশনাল ঢাকা (১৯৭৮-১৯৮১), ব্যংক ক্রেডিট ইন্টারন্যাশনাল (১৯৭৯) চট্রগ্রাম। সংসদ ভবন ঢাকা, ওসমানী মিলনাতন ঢাকা থেকে ট্যাপিস্ট্রি সংগ্রহের অনুরোধ আসে। উল্লেখ্য ঢাকা ক্যন্টমেন্টস্থ বাংলাদেশে সেনাবাহিনীর হেডকোয়ার্টারে তাঁর টেরাকোটা ম্যুরালের কাজও অপূর্ব।

প্রাতিষ্ঠানিক সংগ্রহ *১

১। বঙ্গভবন - ট্যাপেস্ট্রি

২। বিদেশ মন্ত্রণালয় প্যারী, ট্যাপেস্ট্রি

৩। ভারতীয় জাতীয় জাদুঘর, ট্যাপেস্ট্রি

৪। ঢাকা যাদুঘর, ট্যাপেস্ট্রি

৫। সেক্রেটারী জেনারেল, জাতিসংঘ, ট্যাপেস্ট্রি

৬। প্রেসিডেন্ট ভবন, মিশর, ট্যাপেস্ট্রি

৭। প্রেসিডেন্ট ভবন, যুগোশ্লাভিয়া, ট্যাপেস্ট্রি

৮। প্রেসিডেন্ট ভবন, ভারত, ট্যাপেস্ট্রি

৯। প্রধানমন্ত্রী ভবন, অষ্ট্রেলিয়া, ট্যাপেস্ট্রি

১০। প্রধানমন্ত্রী ভবন, ব্রহ্মদেশ, ট্যাপেস্ট্রি

১১। চট্রগ্রাম জাদুঘর, ট্যাপেস্ট্রি

পুরস্কার

১৯৬১ - প্যারীস্থ রোজ আর্ট কর্তৃক ফ্রেসকো চিত্রকর্মের জন্য প্রথম পুরস্কার

১৯৬৭ - তেহরান আর, সি, ডি - দ্বিবার্ষিক চিত্র প্রদর্শনীতে প্রথম পুরস্কার

Additional information