সঙ্গীত ও নৃত্য - পৃষ্ঠা নং-৩

মোঃ রস্তম আলী (রস্তম ভাই)

রাজবাড়ির এক প্রতিভাবান কণ্ঠশিল্পী ছিলেন মোঃ রস্তম আলী। তিনি শুধু কণ্ঠশিল্পী হিসেবেই নয় নাটক ও নৃত্যেও তার প্রতিভা ছিল। তিনি ১৯৫৪ সালে পাকিস্তান আর্ট কাউন্সিল মিউজিক প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেন। অমায়িক সদা হাস্য রস্তম আলী পরিণত বয়সেও রাজবাড়ির সাংস্কৃতিক অঙ্গনকে ‍উজ্জীবিত করে গেছেন।

 

পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়

বর্তমান দেশের প্রখ্যাত নাট্যাভিনেতা পীযূষ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি দীর্ঘকাল রাজবাড়িতে কাটিয়েছেন এবং বলা যায় রাজবাড়ি থেকেই তার নাট্যচর্চা শুরু। তিনি আর এস কে ইনস্টিটিউশনের ছাত্র ছিলেন। তিনি রাজবাড়ির ‘আবোল তাবোল’ শিশু সংগঠনের সাথে জড়িত। সময় পেলে রাজবাড়িতে ছুটে আসেন।

 

 

শাহীনূর বেগম (পপি আপা)

কেবল কবিতায় নয়, সঙ্গীতের ক্ষেত্রে কাজী নজরুল ইসলাম সৃষ্টি করে গেছেন নতুন ঘরানা। নজরুলের লেখা গানের কথা, সুর, রাগ, ঢং, তাল, লয়ের আঙ্গীকতা, মনোমুগ্ধকর, চিত্তাকর্ষক। এ গানের গায়ক গায়িকারা বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে মানুষের কাছে প্রিয়। শাহীনুর বেগম রাজবাড়ির মানুষের কাছে তাই শিক্ষকের চেয়েও বেশি প্রিয় শিল্পী হিসেবে। আর সে কারণেই সকলের নিকট তিনি ‘পপি আপা’। শাহীনুর বেগম প্রায় তিন দশক ধরে বেতার ও টিভির নিয়মিত গ্রেডেশনভুক্ত শিল্পী। তার কন্ঠে নজরুলের গান বিশেষ বৈশিষ্ট্য অর্জন করেছে। শুদ্ধ সুরে তাঁর সঙ্গীত সাধনা প্রশংসার দাবি রাখে। শুধু সঙ্গীতেই নয়, নৃত্যে ১৯৬০ সালে ইস্ট পাকিস্তান মিউজিক কনফারেন্সে ১ম স্থান অধিকার করেন এবং অল পাকিস্তান মিউজিক কনফারেন্সে ২য় স্থান অধিকার করেন। রাজবাড়িতে সত্তর দশকের প্রথম দিকে যখন শিল্পকলা গড়ে ওঠে, সে সময় ফজলু ভাই, দুলাল নাগ, দীপ্তি গুহ, এমএ মোমেন বাচ্চু মাস্টার, শাহীনুর বেগম প্রমুখ বিশেষ অবদান রাখেন। এ শিল্পী রাজবাড়ি সরকারি জেলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালনের পরও নিয়মিত সঙ্গীত সাধনা করে চলেছেন। জড়িত আছেন অনেক সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথে। সৃষ্টি করেছেন অনেক শিল্পী। তিনি লেখকের সহধর্মিনী। শাহীনুর বেগম ১০/৩/২০১০ এর রাজবাড়ি সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

দীপ্তি গুহ

প্রখ্যাত জলতরঙ্গ বাদক বামনদাশ গুহরায়ের কন্যা দীপ্তি গুহ। তিনি এক কালের প্রখ্যাত নৃত্যশিল্পী ছিলেন। ১৯৫৪ সালে অল পাকিস্তান মিউজিক প্রতিযোগিতায় নৃত্যে প্রথম স্থান অধিকার করেন। সাংস্কৃতিক পরিবারে আজন্ম লালিত এই শিল্পী রাজবাড়ির শিল্পাঙ্গনে উৎকর্ষতার জন্য কাজ করে চলেছেন।

Additional information