লোক ঐতিহ্য - পৃষ্ঠা নং-১৯

সাপুড়েনাচ : এটি রাজবাড়ির লোকনৃত্যের বিশেষ অঙ্গ। রাজবাড়ি নদী ও বিল বাওড় বেষ্টিত হওয়ায় এর প্রচলন বেশি-----

বাবু সেলাম বারে বার

আমার নাম গয়া বাইদা

বাড়ি পদ্মার পার

পঙ্খি বেচি, পঙ্খি মারি

পঙ্খি বেচে খাই

মোদের ঘর বাড়ি নাই।

হিজরেনাচ : রাজবাড়ির হিজরের দল কোনো বাড়িতে নবজাতকের খোঁজ পেলে নবজাতককে নিয়ে বিশেষ ভঙ্গীতে নাচ করে অর্থ উপার্জন করে।

ভাইফোটার গান : হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে ভাইফোটা বলে একটি অনুষ্ঠান প্রচলিত আছে। বোন ভাইয়ের কপালে ফোটা দেয় আর কথার সুরে গান করে------

ভাইয়ের কপালে দিলাম ফোটা

জমের দুয়ারে পড়লো কাঁটা

ভাই আমার হোক গ্রামের মাথা

ভাইয়ের কপালে দিলাম ফোঁটা

ভাই বোঝে বোনের ব্যথা

ভাই যাওনা যথা তথা

ভুলোনা ভাই বোনের কথা

ভাইয়ের কপালে দিলাম ফোঁটা

জমের দুয়ারে পড়ল কাঁটা।

ভাই আর বোন একই মায়ের গর্ভজাত সন্তান। পরিবারভুক্ত স্নেহ মায়া মমতার বন্ধনে বেড়ে উঠেছে। গর্ভজাত সন্তানের শরীর এক না হলে মনের জগতে তারা ঐক্যবদ্ধ। মায়া মমতায় একে অপরকে হারাতে রাজী নয়। ভাইয়ের বিপদে বোন শংকিত। নানারুপ সংস্কারে এক বৃত্তের মধ্যে ভাইয়ের সুরক্ষা কামনা করে। লোকজ মনে তারই প্রতিফলন ভাইফোটার অনুষ্ঠান ও গান।

নৌকা বাইচের গান : নদীমাতৃক বাংলায় নৌকা এসময়ে একমাত্র পরিবহন ও যোগাযোগের মাধ্যম। প্রাচীনকাল থেকেই এ দেশের মানুষ নৌকা বানানোর কৌশল আয়ত্ব করে। নৌকা বাইচ তাদের প্রিয় খেলা। বিল হাওড় মাত্রিক রাজবাড়ি জেলার মানুষ নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় মেতে উঠত। বর্ষার দিনে পদ্মা, গড়াই, তেঢালা, পাঁচুরিয়া বিলে অনুষ্ঠিত হয় নৌকা বাইচ। নৌকা বাইচের সময় এরুপ গান গাওয়া হয় -----

জোড়ে টান-----হেঁইও

আরো জোড়ে -----হেঁইও

Additional information